শিশুর ইসলামী সুন্দর বাংলা নামের বই

শিশুর ইসলামী সুন্দর বাংলা নামের বই Free Download Pdf

শিশুর ইসলামী সুন্দর বাংলা নামের বই । প্রত্যেক মুসলিম পিতা-মাতারই একটি অন্যতম কর্তব্য হচ্ছে, শিশুর জন্মের পর পরই তার জন্য একটি ইসলামিক-সুন্দর একটি নাম রাখা। অনেকে অজ্ঞতার বশঃত মনে করেন শিশুর নামটি আরবি বা কুরআনের কোন শব্দের অনুকরণে হলেই বুঝি একটি ভালো নাম হয়ে যায়। কিন্তু এটি একটি ভূল ধারণা কারণ পবিত্র আল কুরআনে অনেক বড় বড় কাফেরদের নামও আছে তাই বলে কি কাফের দের নামই রাখা যাবে? আসলে তা না। মুসলিম শিশুদের সুন্দর নাম রাখতে হলে অবশ্যই আপনার নির্বাচন করা নামটির অর্থ আগে জানতে হবে। তাছাড়া যদি কোন নবী (আ.), খোলাফায়ে রাশেদনী, কোন বড় মাপের সাহাবি বা কোন বুজুর্গানে দ্বীনের নামের অনুকরণে নাম রাখতে চান তাহলে অনেক ক্ষেত্রে উক্ত নামের অর্থ না জানলেও হবে।

শিশুর ইসলামী সুন্দর বাংলা নামের বই । সাধারণত শিশুর জম্মের পর পরই তার নাম রাখা বা তিন দিনের অথবা সাত দিনের মধ্যেই তার একটি শিশুর সুন্দর নাম রাখাই উত্তম। আল্লাহ-তায়ালার নিকট সবচেয়ে উত্তম নাম হচ্ছে ‘আব্দুল্লাহ’ যার অর্থ আল্লাহর বান্দা ও আব্দুর রহমান যার অর্থ ‘রহমানের বান্দা’।

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন – إِنَّ أَحَبَّ أَسْمَائِكُمْ إِلَى اللَّهِ عَبْدُ اللَّهِ وَعَبْدُ الرَّحْمَنِ

অর্থ-“তোমাদের নামসমূহের মধ্যে আল্লাহর নিকট সবচেয়ে প্রিয় হচ্ছে- আব্দুল্লাহ (আল্লাহর বান্দা) ও আব্দুর রহমান (রহমানের বান্দা)।” —– সহীহ মুসলিম।

তবে বুযুর্গানে দ্বীন বা নেককার ব্যক্তিবর্গের নামের অনুকরণেও নাম রাখা উত্তম। এক্ষেত্রে আমাদের দেখতে হবে, সর্বোত্তম উম্মত হচ্ছেন সাহাবা (রাযি) গণ। তাই এক্ষেত্রে তাদের নামের অনুকরণই আগে করা উচিত। এর পর হচ্ছেন তাবেঈন। এর পর তাবে-তাবেঈন। এর পর আলেমগণ। সাধারণত শিশুর পিতাই শিশুর সুন্দর নাম রাখার জন্য অগ্রাধিকার পেয়ে থাকেন।

 

Download Link 1

Download Link 2

Download Link 3

Download Link 4

Download Link 5

Download Link 6

Download Link 7

Comments

comments

Leave a reply