Results for tag "articale"

20 Articles

জাপান কাহিনী – সামাজিক শিক্ষা

জাপান কাহিনী – সামাজিক শিক্ষা

জাপানী দল বিশ্বকাপে হেরে গেলে ও জাপানী দর্শকরা গ্যালারী পরিষ্কার করে স্টেডিয়াম ত্যাগ করেন। এ কেমন কথা? এটা কি তোর পরাজয়ের ভাষা? ব্যাটা হেরেছিস- রেফারীর গুষ্টি তুলে গালি দে- বলে দে পয়সা খেয়েছে। বিয়ারের ক্যান, কোকের ক্যান, চিনাবাদামের খোসা যা পাস ছুড়ে দে। দুই দিন হরতাল ডাক। অন্তত বুদ্বিজীবিদের ভাষায় এটা তো বলতে পারিস যে খেলোয়াড় নির্বাচন ঠিক হয়নি- সরকারের অথবা বিরোধী দলের হাত আছে। Read More →

0 views

দরুদ শরিফের অসামান্য বরকত

দরুদ শরিফের অসামান্য বরকত  মাওলানা আবদুর রশিদ

দরুদ শরিফের বরকত অসীম। ফকীহ আবুল লাইস সমরকন্দী (রহ.) বলেন, আমি আমার পিতাকে এ ঘটনা বলতে শুনেছি, একদিন হজে তওয়াফ করার সময় হজরত সুফিয়ান সওরী (রহ.) এক ব্যক্তিকে দেখলেন যে, সে পা তুলতে এবং পা ফেলতে দরুদ শরিফ পড়ছে। আমি তাকে বললাম আরে ভাই, আপনি যে তাসবিহ ও তাহলিল ছেড়ে শুধু দরুদই পড়ছেন এর কি কোনো রহস্য আছে? লোকটি বলল, যদি আপনি এ যুগের অখ্যাত ও অপরিচিত লোক হতেন, তাহলে আপনাকে এর রহস্যের কথা বলতাম না। তারপর সে আমাকে বলল, একদিন আমি এবং আমার পিতা অসুস্থ হয়ে পড়লে আমি তার সেবা করতে লাগলাম। Read More →

0 views

কুরবানীর ইতিহাস, উদ্দেশ্য ও বিধান

কুরবানীর ইতিহাস, উদ্দেশ্য ও বিধান
মহান আল্লাহ মানব জাতিকে একমাত্র তাঁর ইবাদতের জন্য সৃষ্টি করেছেন। তবে সেক্ষেত্রে তিনি কিছু ইবাদত ফরজ করেছেন, আর কিছুকে ওয়াজিব সাব্যস্ত করেছেন। মুসলিমগণের উচিত একনিষ্ঠভাবে একমাত্র তাঁর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে সেগুলো সম্পন্ন করা। কুরবানী সে ধরনের একটি ইবাদত যার বিধান আদম (আ.) এর যুগ থেকেই চলে আসছে। কিন্তু এ গুরুত্বপূর্ণ ইবাদতের সঠিক ইতিহাস ও বিধানাবলী সম্পর্কে আমরা খুব কমই অবগত আছি। আলোচ্য নিবন্ধটি এ বিষয়ে আমাদের অনেক সহায়ক হবে বলে আমাদের বিশ্বাস। Read More →

6 views

মহানবী (সা.)-এর জীবনে যুদ্ধবিগ্রহ

মহান আল্লাহর দ্বীন ইসলাম প্রচার করতে গিয়ে নবী (সা.)-কে বেশ কিছু ছোট-বড় যুদ্ধের সম্মুখীন হতে হয়েছে। কিন্তু এসব যুদ্ধ প্রচলিত যুদ্ধ-সংঘর্ষ থেকে আলাদা। কারণ মুহাম্মদ (সা.)-এর যুদ্ধগুলো প্রচলিত সামরিক অভিযান ছিল না, সাম্রাজ্য বিস্তার বা ধন-সম্পদ উপার্জনও লক্ষ্য ছিল না। বেশির ভাগ যুদ্ধই ছিল মুসলিমদের ওপর চাপিয়ে দেওয়া। যুদ্ধে মুসলিম বাহিনীর প্রধান কাজ ছিল প্রতিরোধমূলক। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মুহাম্মদ (সা.) তাঁর বাহিনীকে আগে আক্রমণ করতে নিষেধ করতেন। ঐতিহাসিকদের মতে, মুহাম্মদ (সা.) তাঁর জীবদ্দশায় ২৭টি বড় ধরনের যুদ্ধ (গাজওয়া), ৬০টি ছোটখাটো দ্বন্দ্ব-সংঘর্ষ (সারিয়া) সরাসরি পরিচালনা করেছেন। Read More →

0 views

জুম’আর দিনের ফযীলত

উম্মতে মুহাম্মদীর জন্য জুম’আর দিনের ফযীলত সমূহ
১) সূর্য উদিত হয় এমন দিনগুলোর মধ্যে জুম’আর দিন হল সর্বোত্তম দিন। এ দিনে যা কিছু ঘটেছিল তা হলঃ Read More →

0 views

নবীজির প্রতি আবু বকরের রা: ভালোবাসা

হজরত আবু বকর রা: ছিলেন নবীজির সবচেয়ে প্রিয় সাহাবি। যিনি সিদ্দিকে আকবর নামে পরিচিত। তার উপাধি ছিল ‘আতিক’। ইসলামের দাওয়াত পাওয়ার পর যিনি হজরত রাসূল সা:কে নওবুয়ত সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন করেননি তিনি হলেন হজরত আবু বকর রা:। হজরত নবী সা: বলেন, আমি যাকেই ইসলামের দাওয়াত দিয়েছি, সবার মধ্যে কম-বেশি সংশয় দ্বিধা অবশ্যই দেখেছি; কিন্তু আবু বকরের মধ্যে কোনো প্রকার সংশয় দেখিনি, দাওয়াতের সাথে সাথে আবু বকর কলেমা পড়ে মুসলমান হয়ে গিয়েছে। হজরত মুহাম্মদ সা:-এর প্রতি আবু বকরের ভালোবাসা অতুলনীয় ছিল। Read More →

0 views

১০০টি কবীরা গুনাহ

১০০টি কবীরা গুনাহ

কবিরা গুনাহ কি?
কবীরা গুনাহ বলা হয় ঐ সকল বড় বড়
পাপকর্ম সমূহকে যেগুলোতে নিন্মোক্ত
কোন একটি বিষয় পাওয়া যাবে:
যে সকল গুনাহের ব্যাপারে ইসলামে শরীয়তে জাহান্নামে শাস্তির কথা বলা হয়েছে। Read More →

0 views

মা ফাতিমার (আ.) শাহাদত ও আমাদের শিক্ষা

মা ফাতিমার (আ.) শাহাদত ও আমাদের শিক্ষা

আহলে বাইত (আ.)এর প্রেমিকদের কাছে ১৩ই জামাদিউল আওয়াল থেকে ৩ জামাদিউস সানী মা ফাতেমার (ছা:) শাহাদত দিবস উপলক্ষ্যে বিশেষ শোকের দিন। কেননা কোন কোন রেওয়াতে বর্ণিত হয়েছে এগারো মহানবীর (স.)পরলোক গমনের পর মা ফাতেমা ৭৫ দিন জীবিত ছিলেন আবার কোন কোন বর্ণনায় ৯৫ দিনের কথা এসেছে আর এ জন্যই আহলে বাইত প্রেমিকগণ ১৩ই জামাদিউল আওয়াল থেকে ৩ জামাদিউস সানী বিশ দিন মা ফাতেমার (ছা:) শাহাদত দিবস উপলক্ষ্যে শোক পালন করে থাকেন।
হযরত ফাতেমা (ছা:) ছিলেন বিশ্বের সকল মুমিন ও মোমেনার জননী কেননা মহানবী (স.) বলেছেন : আমি ও আলী এই মুসলিম উম্মতের পিতা। তাই নবী পত্নীগণ ও হযরত ফাতেমা (ছা.) মুসলিম উম্মাহর জননী। মা ফাতেমা (ছা.) পরকালে তাঁর অনুসারীদেরকে শাফায়াত করবেন এবং তিনি হলেন খাতুনে জান্নাত। হাদীসের এই কথাগুলোই আমাদের জাতিয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের নীচের কবিতায় ভেসে উঠেছে। Read More →

0 views

আজানের জবাব সঠিকভাবে দিতে হবে

মুয়াজ্জিন আজান দেয় আর এ আওয়াজ শত শত হাজার হাজার মানুষ শ্রবণ করে এবং মুয়াজ্জিনের কথার সঙ্গে কথা মিলায়। এরপর মুয়াজ্জিনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে মসজিদে নামাজ পড়তে চলে আসে। অতএব, মুয়াজ্জিন যদি জান্নাতের টিকিট পায় তাহলে তার ডাকে সাড়া দানকারীরাও পাবে বলে আশা করা যায়। হাদিসে এসেছে, কাল হাশরের ময়দানে মুয়াজ্জিনের গর্দান অনেক লম্বা হবে, তার চেহারায় নূর চমকাতে থাকবে। একই সময়ে কয়েক মসজিদের আজান শুনলে প্রথম আজানের জবাব দিলেই হয়ে যাবে। তবে বেশি সওয়াব পেতে চাইলে প্রত্যেকটির আলাদা আলাদা জবাব দিতে হবে। Read More →

0 views

জানেন কি ১৯৭৪ সালের ১ টাকা এখনকার কত টাকার সমান ?

এক সময় দেশে জমিদারদের বিপুল প্রতাপ-প্রতিপত্তি ছিল। জমিদারের বাড়ির আশপাশ দিয়ে জুতো পায়ে হাঁটার সাধ্য ছিল না কারো। প্রখর রোদে কিংবা অঝোর ধারার বৃষ্টির মধ্যে জমিদারবাড়ির পাশ দিয়ে যাওয়া যেত না ছাতা মাথায় দিয়ে। জমিদারের মুখের কথাই ছিল আইন।

কিন্তু সেকালের কোনো জমিদার জীবনে যে পরিমাণ পয়সা দেখেছেন, একালের দুঃখী ভিখারির ঝুলিতেও থাকে তার চেয়ে বেশি। সে আমলে কয়েক থানা বা মহকুমা এলাকা ঘুরেও একজন কোটিপতির দেখা পাওয়া কঠিন ছিল।

এখন পাড়া-মহল্লায় কোটিপতির ছড়াছড়ি, তবুও যেন অনেকটাই নিঃস্ব তারা। চাইলেই কোনো কিছু পাওয়ার ক্ষমতা নেই তাদের। সেকালের পয়সার সঙ্গে একালের টাকার বড় অঙ্কের নোটগুলোর ক্রয়ক্ষমতার ব্যবধানই এখনকার কোটিপতিদের সঙ্গে সেকালের পয়সাওয়ালাদের দূরত্ব নক্ষত্র সমান করে রেখেছে। Read More →

0 views

ইসলাম ধর্মে এতিমদের অধিকার

বাবা-মা হচ্ছে দুনিয়ায় আমাদের সবচেয়ে আপনজন। তারাই আমাদের বড় করার জন্য, আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য- সবধরনের চেষ্টা চালিয়ে থাকেন। কিন্তু সমাজে অনেকেই আছে যাদের বাবা-মা বেঁচে নেই। এদেরকে এতিম বলা হয়। বাবা-মা বেঁচে না থাকায় এতিমদের দুঃখ-কষ্টের শেষ থাকে না। কিন্তু ইসলাম ধর্মে এতিমদের অধিকার রক্ষায় উৎসাহ দেওয়ার পাশাপাশি তাদের সাথে উত্তম আচরণের জন্য ব্যাপক তাগিদ দেয়া হয়েছে। সামর্থ্যবান ব্যক্তি ও শাসকদের প্রতি এতিমের অধিকার আদায় করার ব্যাপারে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। Read More →

0 views